দ্য পিপল ডেস্কঃ অনিশ্চয়তার মেঘ কাটল, ভ্যাক্সিন পাচ্ছে বাংলাদেশ।
খুশির খবর বাংলাদেশের মানুষের কাছে।
ভ্যাক্সিন বাংলাদেশে রপ্তানির ক্ষেত্রে যে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল ভারতের পক্ষ থেকে তা বাংলাদেশের জন্য কার্যকর করা হচ্ছে না বলেই জানা গেছে।
জানা গেছে, ভারত বাণিজ্যিক রপ্তানির ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে।
দুই সরকারের মধ্যে চুক্তি হয়েছে, সেক্ষেত্রে বাংলাদেশের ভ্যাক্সিন পেতে সমস্যা হবে না বলেই জানা গেছে। ভারতে একই সঙ্গে দুটি ভ্যাক্সিনের অনুমোদন মিলেছে।
এই খবরে স্বাভাবিকভাবেই ভারতীয়দের পাশাপাশি খুশির হাওয়া ছড়িয়েছিল বাংলাদেশেও।
আশা ছিল, ভারতের ভ্যাক্সিন পাবেন বাংলাদেশের মানুষরাও।
বাংলাদেশের সরকারের পক্ষ থেকেও জানানো হয়, জানুয়ারি- ফেব্রুয়ারিতেই ৫০ লক্ষ টিকা পেতে চলেছে দেশের মানুষ।
এরই মধ্যে সিরাম ইনস্টিটিউটের সিইও আদর পুনাওয়াল্লা জানান, ঝুঁকিতে থাকা ভারতীয়দের জন্য ডোজ নিশ্চিত করতে ভ্যাক্সিন রপ্তানি করতে পারবে না সিরাম ইনস্টিটিউট।
এর পরই বাংলাদেশে ভ্যাক্সিন পৌঁছনো নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়।
ইতিমধ্যে ভারত সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সব নাগরিককে বিনামূল্যে করোনার ভ্যাক্সিন দেওয়ার হবে।
সেকারণেই বেসরকারি বাজারেও করোনার ভ্যাক্সিন বিক্রি করতে পারবে না সিরাম ইনস্টিটিউট।
উল্লেখ্য, টিকার ডোজ পেতে বাংলাদেশ ও ভারত সরকারের সঙ্গে চুক্তি হয় বেক্সিমকো ফার্মা ও সিরাম ইনস্টিটিউটের।
এই উদ্যোগের আওতায় প্রথম ধাপের ৬ মাসের প্রতি মাসে বাংলাদেশকে ৫০ লক্ষ করে ভ্যাকসিন দেওয়ার কথা ছিল সিরামের।
বাংলাদেশ ভারতের কাছ থেকে পর্যায়ক্রমে মোট ৩ কোটি করোনা ভ্য়াক্সিনের ডোজ পাবে।