দ্য পিপল ডেস্কঃ আমরা চাই জম্মু-কাশ্মীরের অবস্থা স্বাভাবিক হোক। কিন্তু অতি দ্রুত তা সম্ভব নয়, তার জন্য সরকারকে সময় দিতে হবে। এমনটাই নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট।

আমাদের WHATSAPP গ্রুপে যুক্ত হতে ক্লিক করুন: Whatsapp

কারফিউ, ১৪৪ ধারা তুলে জম্মু-কাশ্মীরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে এবং বিরোধী দলের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীদের মুক্তি দিতে হবে জানিয়ে দেশের শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হন এক সমাজ কর্মী। তাঁর আবেদনের ভিত্তিতেই এই রায় দেয় মহামান্য আদালত।

পাশাপাশি সুপ্রিম কোর্ট মনে করিয়ে দিয়েছে, এখনও পর্যন্ত গুলি চালনার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। কোনো মানুষের প্রাণ যায়নি। ইদের উৎসবও শান্তির মধ্যেই কেটেছে।

উল্লেখ্য, ৩৭০ ধারা বিলোপ করে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা তুলে দেয় কেন্দ্র। যে কোনো রকম অপ্রীতিকর অবস্থা এড়াতে উপত্যকায় জারি হয় ১৪৪ ধারা। নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হয় গোটা উপত্যকা এলাকা।

কেন্দ্রীয় সরকার, প্রশাসন ও নিরাপত্তা আধিকারিকর তরফে জানানো হয় শান্ত আছে ভূস্বর্গ, কোথাও কোনো সমস্যা নেই। আতঙ্ক কটিয়ে ঘীরে ঘীরে ফিরছে ছন্দে।

এর বিরোধিতা করে একাধিক সংবাদমাধ্যম ভিন্ন ছবি প্রকাশ্যে আনে। কংগ্রেস সহ বিরোধী দলের নেতৃত্বের পক্ষ থেকে সেখান মানুষদের স্বাধীনতা ও মত প্রকাশে অধিকার নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়।

যার প্রেক্ষিতে জম্মু-কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে সেখানে যাওয়ার চ্যালেঞ্জ জানান। রাজ্যপাল সত্যপাল মালিকের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেছেন রাহুল।

জম্মু-কাশ্মীর পরিদর্শনের পর রাহুল গান্ধির ‘রিপোর্ট’ কী অন্য কথা বলবে?  অপেক্ষা করতে হবে।