দ্য পিপল ডেস্কঃ  আদালতের কাছে ধাক্কা খেল মহারাষ্ট্র সরকার। আরে কলোনীর একটিও গাছ কাটতে পারবে না সরকার। সোমবার এমনটাই নির্দেশ দিল শীর্ষ আদালতের বিচাপতি অরুণ মিশ্র এবং বিচারপতি অশোক ভূষণের ডিভিশন বেঞ্চ। পাশাপাশি গ্রেফতার হওয়া ২৯ জন বিক্ষোভকারীদের ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন দেওয়ার নির্দেশ দেয় আদালত।  


শীর্ষ আদালতের ডিভিশন বেঞ্চের তরফে আরও বলা হয়,  কতগুলি গাছ কাটা হয়েছে। সেই তথ্য আগামী ২১ অক্টোবরের মধ্যে বন দফতরকে জানাতে হবে।  পরবর্তী শুনানির পর কাজ চালু হবে। তার আগে পর্যন্ত বন্ধ থাকবে গাছ কাটার কাজ।  


এদিন শুনানির ফল বিক্ষোভকারীদের পক্ষে গেলেও আরে কলোনী থেকে ওঠেনি ১৪৪ ধারা। গাছ কাটা নিয়ে বিক্ষোভকারীদের হাতাহাতি হয়। চলে গুলিও। তৈরি হয় ধুন্ধুমার পরিস্থিতির । এই ঘটনাকে ঘিরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছিল মুম্বইয়ের আরে কলোনীতে। ওই ঘটনায় ৬ জন মহিলা সহ ২৯ বিক্ষোভকারীদের গ্রেফতার করেছিল পুলিশ।  


এরপরই মুম্বইয়ের ল কলেজের কয়েকজন ছাত্র সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈকে পুরো বিষয়টি জানিয়ে সরাসরি চিঠি লেখেন। চিঠিতে বে-আইনিভাবে কিভাবে গাছ কাটা হচ্ছে এই বিষয়টিও তুলে ধরা হয়। তারপরই বিষয়টির ওপর নজরে আসে শীর্ষ আদালতের।  

প্রসঙ্গত, মেট্রো পরিকল্পনার জন্য আরে কলোনীর সহ আরও বেশ কিছু জায়গার মোট ২৭০০ গাছ কাঁটা হবে। এর বিরুদ্ধে হাইকোর্টে কেস ফাইল করে পরিবেশপ্রেমীদের সংগঠন। কিন্তু হাইকোর্টের অনুমতি মেলার পরই রাতারাতি শুরু হয়ে যায় গাছ কাটা। সেই গাছ কাটা রুখতেই ধুন্ধুমার বাঁধে।

পাশাপাশি বানিজ্যনগরীর নগরপালিকার কর্তব্য ও দায়িত্ব নিয়েও প্রশ্ন  উঠেছে। এই পরিবেশ প্রেমীদের পাশে দাঁড়িয়ে সমালোচনা করেছেন আদিত্য ঠাকরে সহ একাধিক নেতা ও বলিউডের অভিনেতারা।   

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here