দ্য পিপল ডেস্কঃ মাধ্যমিক,উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা হয়েছিল। ফলাফলও বেরিয়েছিল। সেই মুহূর্তে চলছিল করোনার সাইক্লোন।পরীক্ষার ফলাফল কোন প্রকারে জানতে পেরে আনন্দ উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতে পারেনি কৃতি ছাত্র ছাত্রীরা।এরই মধ্যে সমস্ত কিছু প্রায় স্বাভাবিক হয়ে স্কুল কলেজের পঠন পাঠন শুরু হয়েছে। কম বেশি হলেও বাগ্ দেবীর আরাধনাও হয়েছে প্রায় সর্বত্র।

কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে বাগ্ দেবীর আরাধনায় ব্রতী হয়েছিল ক্যানিংয়ের মাতলা ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের গোলকুঠিপাড়া শিরিষতলা ক্লাব। পুজোর বাজেট থেকে সিংহভাগ অর্থ কাটছাঁট করে ক্লাব প্রাঙ্গনে এক অনুষ্ঠান মঞ্চে বৃহষ্পতিবার রাতে ক্যানিং মহকুমা এলাকার মাধ্যমিক,উচ্চমাধ্যমিকে কৃতি ছাত্র ছাত্রীদের বিশেষ সংবর্ধনা এবং মান পত্র তুলে দিল ক্লাব কর্তৃপক্ষ।

পাশাপাশি ২১ তম বর্ষের এই পুজো উপলক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছিল বিভিন্ন ধরনের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা। ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় এলাকার শিশু সহ প্রায় কয়েক হাজার ক্রীড়াপ্রেমী মানুষ অংশ গ্রহণ করছিল।তাদের সকলের হাতে মানপত্র ও পুরষ্কার তুলে দেয় ক্লাব কর্তৃপক্ষ।অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলাপরিষদ সদস্য তপন সাহা,বিশিষ্ট সমাজসেব ফারুক আহমেদ সরদার,দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা জয়হিন্দ বাহিনীর সম্পাদক শুভেন্দু মন্ডল,মাতলা ২ গ্রাম পঞ্চায়েত তৃণমূল সভাপতি অরিত্র বোস,বিকাশ মজুমদার,গোলকুঠিপাড়া শিরিষতলা ক্লাবের সম্পাদক সন্তোষ রায় সহ অন্যান্যরা।

ক্যানিং মহকুমা এলাকায় মাধ্যমিকে ৬৬১,৬৫৫,৬৫৪ নম্বর পেয়ে প্রথম,দ্বিতীয়, তৃতীয় হয়েছে অন্বেষা সমাদ্দার,বিপাশা বিশ্বাস,ময়ূখ বেরা। অন্যদিকে মহকুমায় উচ্চমাধ্যমিকে ৪৮৯,৪৮৭,৪৮২ নম্বর পেয়ে প্রথম,দ্বিতীয়,তৃতীয় হয়েছে সুলগ্না মল্লিক,সন্দিপণ চৌধূরী,বিপ্রজিৎ বিশ্বাস।

ক্যানিং মহকুমা এলাকায় উচ্চমাধ্যমিকে সর্বোচ্চ নম্বর প্রাপ্ত সুলগ্না মল্লিকের কথায় “মাধ্যমিকে মহকুমার মধ্যে সর্বোচ্চ নম্বর পেয়েছিলাম। বিভিন্ন জায়গা থেকে সংবর্ধনাও পেয়েছিলাম।উচ্চমাধ্যমিকে ভালো ফল করলেও করোনা আর লকডাউন আমাদের সর্বস্য কেড়ে নিয়েছিল।বিষাক্ত হয়ে উঠেছিল সমগ্র সমাজ এবং দেশ।বন্ধ হয়ে গিয়েছিল স্কুল কলেজের পড়াশোনা।

কঠিন পরিস্থিতিতে আবার সংবর্ধনা পাবো এবং পড়াশোনা জগতে ফিরতে পারবো ধারনা ছিল না। সরস্বতী দেবীর কৃপায় সমস্ত কিছু ঠিক শুরু হয়েছে। দীর্ঘদিন পর ক্লাব কর্তারা আমাদের মতো ছাত্রছাত্রীদের কথা ভাববে ধারণা ছিল না।সংবর্ধনা ও মানপত্র পেয়ে ভালো লাগছে। আগামী দিনে পড়াশোনা করে ক্যানিংয়ের মুখ আরো উজ্জ্বল করতে চাই”।