ভাইকে ফোঁটা দেওয়া হয় কেন 01

দ্য পিপল ডেস্কঃ কালীপুজোর একদিন পরেই ভাইফোঁটা। ভাই বা দাদাদের কাছ থেকে কী উপহার আদায় করা যায় তা নিয়ে আগে থেকে প্ল্যান করতে শুরু করেছেন বোনেরা। কিন্তু জানেন কী ভাইকে ফোঁটা দেওয়া হয় কেন ? শুধুমাত্র ভাইয়ের দীর্ঘ আয়ুর জন্য? নাকি অন্য কোনো কারণ আছে?

কার্তিকী অমাবস্যার পর দ্বিতীয়ায় ভাইফোঁটা বা ভ্রাতৃদ্বিতীয়ার অনুষ্ঠান হয়।

উত্তরপ্রদেশে ও বিহারে পরিচিত ভাইদুজ নামে, দক্ষিণ ভারতে পরিচিত যমদ্বিতীয়া নামে, মহারাষ্ট্র ও গুজরাটে পরিচিত ভাই বিজ নামে।

আরও পড়ুন : অমাবস্যাতেই আলোর উৎসব

শুধু ভারতে নয়, প্রতিবেশী দেশ নেপালেও ভাইফোঁটার উত্সব প্রচলিত। নেপালে এই উত্সব ভাইটিকা নামে পরিচিত।

পুরাণ অনুযায়ী, নরকাসুরকে বধ করে বোন সুভদ্রার কাছে গিয়েছিলেন শ্রীকৃষ্ণ।

ফুল-মিস্টি নিয়ে দাদাকে স্বাগত জানিয়েছিলেন সুভদ্রা। প্রদীপ দেখিয়ে আরতি করে কপালে পরিয়েছিলেন বিজয় তিলক।

ভাইকে ফোঁটা দেওয়া হয় কেন

প্রচলিত আর একটি কাহিনি হল, এদিন যমরাজা তার বোনের কাছে গেছিলেন, ভাইকে স্বাগত জানাতে যমের বোন যমুনা প্রদীপ দিয়ে আরতি করে ঘরে স্বাগত জানিয়েছিলেন, মিস্টিমুখ করিয়েছিলেন।

প্রাচীন রীতি মেনেই বাঁহাতের কড়ে আঙুল দিয়ে ভাই বা দাদার কপালে ফোঁটা এঁকে দিয়ে তার মঙ্গল ও দীর্ঘ আয়ু কামনা করেন বোনেরা।

পঞ্চভূতের প্রতীক মানুষের হাতের পাঁচ আঙুল, যার মধ্যে কড়ে আঙুল হল ব্যোমের প্রতীক। এই আঙুল হল ভালবাসার প্রতীক।

ভাই-বোনোর মধ্যে সম্পর্ক সারা জীবন যেন ভালো থাকে, ভালবাসায় মোড়া থাকে। তাই কড়ে আঙুল দিয়ে  ফোঁটা দেওয়া হয়। 

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here