দ্য পিপল ডেস্কঃ প্রয়াত বাংলা সাহিত্যের বিখ্যাত সাহিত্যিক নবনীতা দেবসেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। দীর্ঘদিন ধরে রোগে ভুগছিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা নাগাদ হিন্দুস্থান রোডের বাড়িতেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

দীর্ঘদিন ধরেই ক্যান্সারে ভুগছিলেন বিখ্যাত সাহিত্যিক। মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করেও নিজের কলমকে কখনও বিরাম দেননি। সেই লড়াইয়ের অবসান হল এদিন। পরিবার সূত্রের খবর, আগামীকাল শেষকৃত্যের কাজ সম্পন্ন করা হবে।

নবনিতা দেবসেনের লেখা কবিতা, গদ্য সাহিত্যের ইতিহাসে এক অনবদ্য সৃষ্টি। ১৯৯৯ সালে সাহিত্য অ্যাকাডেমি পুরষ্কার পান তিনি। ২০০০ সালে পদ্মশ্রী।

১৯৫৯ সালে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন নবনিতা দেবসেন। ১৯৭৬ সালে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। তাঁর দুই মেয়ে অন্তরা দেবসেন এবং নন্দনা সেন।

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে দীর্ঘ সময় ধরে অধ্যাপনা করেছেন তিনি। এছাড়াও কলোরাডো এবং অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেছেন তিনি।

প্রশাসনের তরফে তাঁর প্রাক্তন স্বামী এবং পরিবারকে খবর দেওয়া হয়েছে। যদিও এখনও কোনও উত্তর মেলেনি।

সাহিত্যিক নবনীতা দেবসেনের প্রয়াণে শোকপ্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন, বিশিষ্ট সাহিত্যিক ও শিক্ষাবিদ নবনীতা দেবসেনের  প্রয়াণে আমি গভীর শোক প্রকাশ করছি। তিনি আজ ৮১ বছর বয়সে কলকাতায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

অসংখ্য গল্প, কবিতা, রম্যরচনা ও উপন্যাসের স্রষ্টা  নবনীতা দেবসেন  পদ্মশ্রী, সাহিত্য অ্যাকাডেমি, কমলকুমারী জাতীয় পুরস্কারে ভূষিত হন। তিনি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে তুলনামূলক সাহিত্য বিভাগে অধ্যাপনা করতেন।

তাঁর প্রয়াণে সাহিত্য জগতে এক অপূরণীয় ক্ষতি হল।

আমি নবনীতা দেবসেনের পরিবার-পরিজন ও অনুরাগীদের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here