দ্য পিপল ডেস্কঃ এশিয়া চ্যাম্পিয়ন কাতার-কে রুখে ২০২২ বিশ্বকাপ কোয়ালিফাই পর্বের আশা বাঁচিয়ে রাখল ভারত। এদিন নতুন ইতিহাসও গড়ল ব্লু টাইগার্সরা। ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, কলম্বিয়ার পর কাতারের বিরুদ্ধে গোলশূন্য দল হিসেবে নাম তুলল সুনীল ছেত্রীহীন ভারত।

মঙ্গলবার দোহার জাসিম বিন হামাদ স্টেডিয়াম বিশ্বকাপ আয়োজনকারীদের আটকে গোটা ফুটবল জগতকে চমক দিয়েছে গুরপ্রীত অ্যান্ড কোম্পানি। এদিনের ম্যাচে মাঠে নামার আগেই দুশ্চিন্তায় ছিল ক্রোয়েশিয়ান কোচ। অসুস্থতার কারণে সুনীল দলের বাইরে থাকায় অস্বস্থিতে পরেছিলেন স্টিমাচ।

তবে এদিনের ম্যাচে প্রথমদিক থেকেই ভারতের বক্সে আক্রমন শানাচ্ছিল এশিয়া চ্যাম্পিয়ন কাতার। কিন্তু প্রতিবারই বাধা প্রাপ্ত হয়েছে আদিল খান, রওলিন বর্জেস ও ঝিঙ্গনের সামনে। গোলের সামনে এসেও মুখ খুলতে ব্যর্থ হয়েছিল তারা। ডিফেন্স লাইন পেরোলেও তিকাঠির নীচে ঠায় দাঁড়ানো গুরপ্রীতকে হারাতে ব্যর্থ হয়েছে স্যাঞ্চেজের ছেলেরা।

অবশ্য গোটা ম্যাচ জুড়ে শাসন করেছে আব্দুল আজিজ হাতেমরা। একের পর এক বুলেট শট আছড়ে পড়ছিল ইন্ডিয়ার বক্সে। ততবারই চীনের প্রাচীরের মতো দীঢ় ও প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়ে গোলকে রক্ষা করছিলেন গুরপ্রীত।  

ম্যাচের শেষ দিকে অবশ্য কিছু সুযোগ তৈরি করেছিলেন উদান্তা সিং। তার চেষ্টাতেই ৬৭ মিনিটের মাথায় প্রথম কর্নার পায় ভারত। এছাড়াও উদান্তার একটি বল বার পোস্টের গা ঘেঁষে বাইরে চলে গেল। না হলে হয়তো আরেক নয়া রেকর্ড গড়তে পারত ভারত। এছাড়াও ম্যাচের অন্তিম ১০ মিনিটে দুটো সহজ গোলের সুযোগ মিস করেছিল এশিয়া চ্যাম্পিয়ন কাতার দলের খেলোয়াড়রা।

এই ঐতিহাসিক ম্যাচের পর সুনীল ছেত্রী বলেন, এটা আমার দল। দলের ছেলেদের খেলা দেখে গর্ব বোধ করছি। এদিনের ম্যাচের ফল পয়েন্টে টেবিলে কোনও বদল হবে না ঠিক। কিন্তু ভারতীয় ফুটবলের জন্য এটি গোল্ডেন টাইম।     


এই ম্যাচ ঐতিহাসিক ড্রয়ের পর অধিনায়ক গুরপ্রীত জানান, কোয়ালিফাই পর্বের দুই বড় দল ওমান ও কাতারের বিরুদ্ধে ভালো খেলেছে দল। প্রত্যেকেই নিজের সেরাটা উজাড় করে দিয়েছে। এদিনের ম্যাচের সাফল্য প্রত্যেকের খেলোয়াড়ের। আগামী দিনে আরও সাফল্য আসবে। 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here