দ্য পিপল ডেস্কঃ স্মার্টফোনের ব্যবহার থেকেই বোঝা যাবে মানুষের ব্যক্তিত্ব। এমনই তথ্য জানালেন অস্ট্রেলিয়ার আরএমআইটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর ফ্লোরা সালিম। এক সমীক্ষার মাধ্যমে তিনি জানিয়েছেন একজন মানুষের স্মার্টফোন ব্যবহারই বলে দেয় সেই মানুষের ব্যক্তিত্ব। স্মার্টফোন ব্যবহারে মানুষের কথা বলা, হাঁটা চলা , কত সময় ধরে কথা বলছে সেই সব থেকে বিচার করা যায় মানুষের ব্যক্তিত্ব বলে জানান তিনি।

আমাদের WHATSAPP গ্রুপে যুক্ত হতে ক্লিক করুন: Whatsapp

একজন মানুষের স্বভাব, অভ্যাস সমন্ধে বুঝতে পারে স্বয়ং তিনি নিজে।অন্যদিকে  মানুষটির ব্যক্তিত্ব বুঝতে পারে অন্য ব্যক্তিরা ।  তবে এবার থেকে ফোনে কথা বলা থেকে বোঝা যাবে মানুষের ব্যক্তিত্ব বলে জানাল সমীক্ষা।

সমীক্ষা অনুযায়ী স্মার্টফোন ব্যবহারে ফলে কার ব্যক্তিত্ব কী তা জেনে নেওয়া যাক…

সমাজে প্রধানত দুই ধরণের ব্যক্তিত্বের মানুষ থাকে বলে মনে করা হয়। এক  ইন্ট্রোভার্ট বা অন্তর্মুখী ও অপরটি এক্সট্রোভার্ট বা বহির্মুখী। ইন্ট্রোভার্ট বা অন্তর্মুখী অর্থাৎ যাদের আমরা চাপা স্বভাবের মানুষ নামে আক্ষা দিয়ে থাকি। সমীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী বলা হচ্ছে এই অন্তর্মুখী ব্যক্তিরা গোটা সপ্তাহ সক্রিয় থাকেন। অন্যদিকে এক্সট্রোভার্ট বা বহির্মুখী স্বভাবের মানুষরা গোটা সপ্তাহ জুড়ে নানা ধরণের মানুষের সঙ্গে মিশতে ভালোবাসেন। এই স্বভাবের মানুষরা মানুষের সঙ্গে মিশতে ভালোবাসে বলে জানাচ্ছে সমীক্ষায়।

স্মার্টফোনের ব্যবহারের উপর সমীক্ষা চালিয়ে দেখা গেছে প্রাণোচ্ছল মানুষরা বন্ধুদের সঙ্গে সময় কাটাতে ভালোবাসেন। সন্ধের সময় এই ব্যক্তিত্বের মানুষরা বন্ধুদের সঙ্গে সময় কাটান। পাশাপাশি দায়িত্বশীল মহিলারা ফোনের মাধ্যেমে অন্যদের খোঁজ খবর নিতে ভালোবাসেন বলে জানাচ্ছে সমীক্ষা।

আদর্শবান ব্যক্তিরা মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে ভালোবাসেন বলে জানাচ্ছে সমীক্ষা। এই সমস্ত মানুষরা একজন মানুষের সঙ্গে বারবার ফোনে যোগাযোগ রাখতে ভালোবাসেন তাঁরা।   

ফোন নিয়ে উৎকণ্ঠায় ভোগে অনেক মহিলা বলে জানাচ্ছে সমীক্ষা। এই ব্যক্তিত্বের মহিলারা ঘন ঘন মোবাইল দেখার পাশাপাশি নতুন কিছু ফোনে এলো কী না সেটা দেখে থাকে।