প্রতীকী ছবি

দ্য পিপল ডেস্ক : বিশ্বজুড়ে থাবা বসিয়েছে নোভেল করোনা ভাইরাস। করোনার করালগ্রাসে বিশ্বের প্রায় সব দেশেই মৃত্যুর হার বেড়েই চলেছে।


সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে প্রতিষেধক বানানোর চেষ্টায় রয়েছে বিশ্বের তাবড় তাবড় বিজ্ঞানী। দিনরাত নিরলস পরিশ্রম করে চলেছেন প্রতিষেধক তৈরির।


প্রতিষেধক তৈরি না হওয়া পর্যন্ত করোনার করাল থাবা থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব নয়। তবে করোনাকে প্রতিরোধ করতে কিছুটা হলেও কাজে দিচ্ছে অ্যান্টিবডি ড্রাগ।


কিউবার একটি হাসপাতালে করোনা ভাইরাস এর বিরুদ্ধে ভালো সাফল্য পেয়েছে এই অ্যান্টিবডি ড্রাগ।


কিউবায় হওয়া একটি সমীক্ষায় এই তথ্য উঠে এসেছে। অ্যান্টিবডি ড্রাগটি ব্যবহার করার পর মৃত্যুর হার কিছুটা কমেছে।


ইন্ডিয়ার বায়োকন লিমিটেড সূত্রের খবর, চলতি মাসের শুরুতে ইটোলিজুমাব ব্যবহার করার জন্য অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।


করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা দূর করতে এই ওষুধটি অনুমোদিত হয়েছে। এটি মূলত সোরিয়াসিস রোগের ওষুধ।


কিউবার সেন্টার অফ মলিকিউলার ইমিউনোলজির গবেষকরা বলেছেন, সময় মত ওষুধটি পর্যাপ্ত ভাবে ব্যবহার করা হয় তাহলে এটি করোনা সংক্রমণে কিছুটা হলেও কাজে দেয়।


এপ্রিল মাসে ১৯ জনের মধ্যে এই পরীক্ষা করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে বেশির ভাগই ৬৪ বছরের ঊর্ধ্বে। তাদের মধ্যে কেউ কেউ হাইপারটেনশন, কেউ কেউ ডিমেনশিয়া, হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, ফুসফুসের রোগে আক্রান্ত ছিলেন।


তাদের বয়স এবং শারীরিক অসুস্থতাগুলি করোনায় ঝুঁকির কারণ হিসেবে বিবেচিত হয়। কিউবাতে কয়েকজনের ওপর প্রথম এবং দ্বিতীয় ডোজ ব্যবহার করা হয়েছে।


এবং এই পরীক্ষামূলক অ্যান্টিবডি ড্রাগ কাজেও এসেছে। স্বাভাবিক ভাবেই করোনার প্রতিষেধক তৈরির গবেষনায় নতুন করে জায়গা পেতে চলেছে এই অ্য়ান্টিবডি ড্রাগ।