দ্য পিপল ডেস্কঃ দুর্গাপুজোর মাধ্যমে জনসংযোগে নয়া মাত্রা যোগ করতে ও পুজো উদ্বোধন করতে কলকাতায় বিজেপির কেন্দ্রীয় সভাপতি অমিত শাহ। নেতাজি ইন্ডোরে বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত তাঁর গলায় ঝরে পড়েছে এরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের সমালোচনা।

উল্লেখ্য, এদিনই অমিত শাহের হাত থেকে বিজেপির দলীয় পতাকা নিয়ে বিজেপিতে যোগ দেন বিধানগরের প্রাক্তন মেয়র তথা তৃণমূল নেতা সব্যসাচী দত্ত।  

সামনের বছর পুরভোট এবং তার পরে বছর বিধানসভা ভোটকেই পাখির চোখ করেই বক্তব্যে আগুন ঝরে পড়ে অমিত শাহের গলা থেকে। বিধানসভায় এরাজ্যে ক্ষমতায় আসতে বিজেপি কর্মীদের উদ্দিপ্ত করতে নিজস্ব ভঙ্গিতে আক্রমণ করেন তৃণমূল সরকার ও নেত্রীকে।  

বাংলার মানুষকে দুর্গাপুজোর শুভেচ্ছা জানিয়ে এই রাজ্যকে সোনার বাংলা গড়তে ও বিজেপি সরকার গড়তে একবার সুযোগ দিতে আবেদন জানান অমিত শাহ।

পাশাপাশি, ২০১৪ লোকসভা ভোট থেকে ২০১৯ এর লোকসভায় বিজেপি ২ থেকে ১৮ আসন দেওয়ায় বাংলার মানুষকে ধন্যবাদও জানান অমিত শাহ।  

নেতাজি ইন্ডোরের সভা থেকে অমিত শাহ এদিনও স্পষ্ট করেন, এ রাজ্যে অনুপ্রবেশকারীদের কোনো জায়গা নেই, তবে শরণার্থীদের দেখবে বিজেপি সরকার। একজনও হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান কোনো শরণার্থীকে এনআরসি করে বাংলা থেকে তাড়ানো হবে না। সেজন্যই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল আনা হচ্ছে, তৃণমূল বিরোধিতা করলেও এই বিল পাশ হবে।

তিনি বলেন, এনআরসি নিয়ে বাংলার মানুষকে ভুল বোঝানো হচ্ছে। আমাদের কর্মীদের উপর অত্যাচার হচ্ছে, কর্মীদের খুন করা হচ্ছে।   

এরাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় এলে এনআরসি হবে এদিন তা আরও একবার স্পষ্ট করে দেন অমিত শাহ। বলেন, ৩৫ এ ধারা ও ৩৭০ ধারা বিলোপ করে শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জির স্বপ্ন পূরণ করেছেন নরেন্দ্র মোদি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here