দ্য পিপল ডেস্কঃ ৭০ বছরের পুরনো মামলায় পাকিস্তানকে হারিয়ে জয়ের হাসি হাসল ভারত। মামলাটি ছিল হায়দ্রাবাদের নিজামের ১ মিলিয়ন ইউরোর লড়াইয়ের। বর্তমানে যা সুদ হয়ে দাঁড়িয়েছে ৩৫ মিলিয়ন ইউরো।

এই টাকাটি কার ভারত নাকি পাকিস্তানের ? এই নিয়ে দীর্ঘ ৭০ বছর ধরে চলে মামলাটি। অবশেষে লন্ডন আদালত জানায়, নিজামের এই অর্থ পাবেন উত্তরপুরুষরাই। অর্থাৎ এই জয় ভারতের। কারণ, এই মামলায় ভারতের পাশে ছিলেন নিজামের পরিবারের সপ্তম মীর আলি ওসমান খানের উত্তরসূরী মুকাররাম জাহ এবং তাঁর ভাই মুফাখ্খাম জাহ।

পাক সরকারের দাবি,  এই টাকায় তাদের অঘিকার। তবে সঠিক তথ্যের অভাবে পাকিস্তানের এই দাবিকে নাকচ করে দেন লন্ডনের রয়্যাল কোর্টস অব জাস্টিস বিচারক মার্কাস।

প্রসঙ্গত, দেশভাগের পর পাকিস্তানের সঙ্গে তৈরি হয়েছিল আরও দুটি অংশ। পূর্ব পাকিস্তান অর্থাৎ বাংলাদেশ ও পশ্চিম পাকিস্তান অর্থাৎ হায়দ্রাবাদ। 

সেই সময় ভারতীয় সেনার সঙ্গে লড়াইয়ের জন্য পাকিস্তান থেকে অস্ত্র সংগ্রহ করতেন নিজাম। তখন ভারতীয় সেনার হাত থেকে রক্ষা করতে ১ পাউন্ড ইউরো পাকিস্তানের হাইকমিশনার হাবিব ইব্রাহিম রহিমতুল্লার লন্ডনের অ্যাকাউন্টে রাখা হয়েছিল।

ঘটনাচক্রে ১৯৪৮ সালে ভারতের সঙ্গে অর্ন্তভুক্ত হয় হায়দ্রাবাদ। এরপরই নিজাম মীর জানান, তাঁর অনুমতি ছাড়াই টাকা ট্রান্সফার করেছে পাকিস্তান।  

পরে ১৯৫৪ সালে পাকিস্তানের থেকে টাকা নিতে ইউকে আদালতে কেস ফাইল করেন  নিজাম। সেই সময় পাক প্রশাসন টাকা ফেরত দিতে নাকচ করে। তখন কোনও তথ্য প্রমাণের অভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয় কেসটি। এরপর ফের ভারতের সরকাররে তরফে আবেদন করা হয়।

২০১৩ সালে আচমকাই উদ্ধার হয় নিজামের অর্থের কিছু নথি। যেটি ছিল লন্ডনের জাতীয় ওয়েস্টমিনস্টের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের কেস ফাইলের নথি।

এক সময় এই আইনি লড়াই ছিল নিজার পরিবার ও পাক সরকারের। অবশেষে ভারতীয় রাষ্ট্রপতি ও নিজামের রাজপুত্রের মধ্যে চুক্তি হয়, পরিবারের নয় এই মামলা দেশের হয়ে লড়া হবে। অবশেষ, তাঁদের পক্ষেই রায়দান করে লন্ডন আদালত।    

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here