দ্য পিপলডেস্ক-  Touch the sky with glory- ইন্ডিয়ান এয়ারফোর্স বা ভারতীয় বায়ুসেনার ট্যাগ লাইন ।

১৯৩২ সাল থেকে এখনো অবধি আকাশপথে যাদের সুরক্ষা বলয়ে নিশ্চিন্তে রয়েছে দেশবাসী ।

প্রতি বছর ৮ অক্টোবর ভারতীয় বায়ুসেনা দিবস পালন করা হয়ে থাকে ।

৮৭তম বায়ুসেনা দিবসে আসুন জেনে নেওয়া যাক ভারতীয় বায়ুসেনার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস ।

ভারতীয় বায়ুসেনা দিবস,ইতিহাস

১৯৩২ সালের ৮ সেপ্টেম্বর ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের সাহায্যকারী বিমানবাহিনী রূপে ভারতীয় বায়ুসেনার প্রতিষ্ঠা করা হয় ।

১৯৪৫ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে বায়ুসেনার যোগদানের স্বীকৃতি স্বরূপ বাহিনীর নামের সঙ্গে রয়্যাল উপাধি যুক্ত হয় ।

১৯৪৭ সালে ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের হাত থেকে মুক্ত হওয়ার পর রয়্যাল ইন্ডিয়ান এয়ার ফোর্স স্বাধীন ভারত সরকারের অধীনস্থ হয়।

ভারতীয় বায়ুসেনা দিবস,সংবিধান এবং বায়ুসেনা আইন

স্বাধীনতার পর ১৯৪৭ সালে সশস্ত্র বাহিনী আইন, ভারতের সংবিধান ও ১৯৫০ সালের বায়ুসেনা আইন অনুসারে আকাশযুদ্ধে বায়ুসেনার লক্ষ্য হল: প্রতিরক্ষা প্রস্তুতি তথা নিরাপত্তা সংক্রান্ত সকল পদক্ষেপসহ ভারতের প্রতিটি অংশের প্রতিরক্ষা ।

যুদ্ধের শুরু থেকে যুদ্ধসমাপ্তি এবং যুদ্ধপরবর্তী শান্তিপ্রতিষ্ঠা ।

এছাড়াও ভারতীয় সামরিক বাহিনীর অন্যান্য শাখার ন্যায় বায়ুসেনাও প্রাকৃতিক বিপর্যয় বা অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা ব্যবস্থা পরিচালনার ক্ষেত্রে স্থানীয় ও রাজ্য সরকারগুলিকে সব রকম সহায়তা করতে পারে ।

এয়ারফোর্সের যুদ্ধের ইতিহাস

১৯৫০ সালে ভারত প্রজাতান্ত্রিক রাষ্ট্র ঘোষিত হলে রয়্যাল উপাধি বর্জন করা হয় । স্বাধীনতার পর থেকে পাকিস্তানের সঙ্গে ৪টি এবং চীনের সঙ্গে একটি যুদ্ধে লিপ্ত হয়েছে ।

এছাড়া যে অভিযানগুলিতে বায়ুসেনা অংশগ্রহণ করেছে সেগুলি হল গোয়া আক্রমণ, অপারেশন মেঘদূতঅপারেশন ক্যাকটাস

বায়ুসেনার গঠনশৈলী

ভারতের রাষ্ট্রপতি বায়ুসেনার সর্বাধিনায়করূপে বিবেচিত হয়ে থাকেন । বর্তমানে বায়ুসেনার সর্বাধিনায়কের নাম রামনাথ কোবিন্দ ।

এয়ার চিফ মার্শাল পদের অফিসার বায়ুসেনাপ্রধান রূপে বিমানবাহিনীকে পরিচালিত করেন ।

একজন মাত্র অফিসার অদ্যাবধি পাঁচ-তারা মার্শাল অফ দ্য এয়ার ফোর্স পদে উন্নীত হয়েছেন । তিনি অর্জন সিং,মার্শাল অব দ্যা এয়ার ফোর্স ।

ভারতীয় বিমানবাহিনীর কর্মীসংখ্যা ১৭০,০০০ । বায়ুসেনার বর্তমানে ১,১৩০টি কমব্যাট ও ১,৭০০টি নন-কমব্যাট এয়ারক্র্যাক্ট সক্রিয় আছে ।

সাম্প্রতিককালে ভারতীয় বিমানবাহিনী আধুনিকীকরণের প্রক্রিয়ার অঙ্গ হিসেবে সোভিয়েত জমানার ফাইটার জেটগুলি বাতিল করা হচ্ছে ।

এমআরসিএ কর্মসূচির অধীনে বায়ুসেনা ১২৬টি নতুন ফাইটার জেট কেনার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছে যাদের অর্থমূল্য ১২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ।

৮৭তম বায়ুসেনা দিবসের মূল চমক

৮৭তম বায়ুসেনা দিবসের মূল চমক হিসেবে থাকছে বেশ কিছু বিষয় ।

প্রথমত,বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকে যোগদানকারী উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান এবং তার ২ সহযোগী একটি মিরাজ ২০০০ এয়ারক্রাফ্ট এবং ২টি সুখোই ৩০ এমকেআই এয়ারক্রাফ্টে অ্যাভেঞ্জার ফর্মেশনে গাজিয়াবাদের হিন্দোন এয়ারবেসের প্যারেড গ্রাউন্ডে প্রবেশ করবেন ।

দ্বিতীয়ত, বহুল চর্চিত এবং বহুপ্রতীক্ষিত রাফাল এয়ারক্রাফ্টের আগমন ।

সরকারী ভাবে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং, ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ার মার্শাল, বায়ুসেনার আধিকারিক এবং দেশবাসীর উপস্থিতিতে ৩৬টি রাফাল এয়ারক্রাফ্ট ভারতীয় বিমানবাহিনীর স্কোয়াড্রনে যুক্ত হতে চলেছে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here