দ্য পিপল ডেস্কঃ যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ক্রমশ উন্নত হচ্ছে বিজ্ঞান । আর সেই বিজ্ঞানের ওপর ভরসা করেই চাঁদ থেকে মঙ্গল সব জায়গায়তেই রয়েছে মানুষের আধিপত্য। বিজ্ঞানের হাত ধরে আবারও এক চমক। ৭৪ বছর বয়সে যমজ শিশু কন্যার জন্ম দিলেন এক বৃদ্ধা।

অন্ধ্রপ্রদেশের পুর্ব গোদাবরী জেলার নেলাপারতিপদু এলাকার বাসিন্দা এরামাত্তি মঙ্গায়াম্মা। ১৯৬২ সালে ইয়েরামাত্তি রাজা রাওয়ের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে অবদ্ধ হন মঙ্গায়াম্মা। বিবাহের ৫৭ বছর পরেও নিঃসন্তান ছিলেন ওই দম্পতি। শেষ বয়সে আক্ষেপ মেটাতেই এতবড় সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেললেন। গুন্টুরের অহল্যা নার্সিংহোমে জন্মদিলেন দুই যমজ শিশুর।

হাসপাতালের চিকিৎসক উমাশঙ্কর জানিয়েছেন, গত বছরেই ইন ভার্টো পদ্ধতির মাধ্যমে সন্তান নেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন তিনি। যেখানে মাঙ্গায়াম্মার ডিম্বাণু এবং তাঁর স্বামী রাজা রাওয়ের শুক্রাণুর মিলন ঘটানো হয়েছে। উমাশঙ্কর জানিয়েছেন, ‘‘১০ জন চিকিৎসকদের দল ৯ মাস ধরে তাঁর স্বাস্থ্যের দিকে নজর রেখেছিলেন। নিয়মিত স্ক্যা‌ন করেই নিশ্চিত হওয়া গিয়েছিল যে কোনও জটিলতা তৈরি হয়নি।”

উমাশঙ্কর আরও বলেন, ‘‘এটি একটি মেডিক্যাল মিরাকেল।” তাঁর কথায়, মাঙ্গায়াম্মাই সবথেকে বেশি বয়সে সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। এর আগে ২০১৬ সালে ৭০ বছর বয়সে সন্তানের জন্ম দিয়ে রেকর্ড গড়েছিলেন হরিয়ানার দলজিন্দর কউরের।

 

চলতি বছরের জানুয়ারিতেই সন্তান ধারনের খবর নিশ্চিত করা হয়। গর্ভাবস্থা চলাকালীন হাসপাতালে চিকিৎসকদের নজরদারিতে ছিলেন ওই মহিলা। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় সি-সেকশন সার্জারির মাধ্যমে সুস্থ দুই যমজ কন্যার জন্ম দিলেন তিনি।

এদিন রাজা রাওয়ের স্বামী জানিয়েছেন, “আমি খুব খুশি। আমরা নয় মাস ধরে হাসপাতালে রয়েছি। দীর্ঘ নয় মাস হাসপাতালে থাকার পর আজ দুই সন্তানের মুখ দেখে সমস্ত কষ্ট ভুলে গিয়েছি। আমরা দুই সন্তানের প্রতিই সমান যত্ন নেব”।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও আত্মীদের মধ্যে মিষ্টি বিতরণের মাধ্যমে এদিন মূহুর্তটি ভাগ করে নেন ওই দম্পতি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here